করোনা ভাইরাসে বিশ্বব্যাপী  আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা প্রতিনিয়তই বাড়ছে। ইতোমধ্যে ২ লাখ ৮৬ হাজারের বেশি মানুষ মারা গেছেন। আক্রান্ত হয়েছেন সাড়ে ৪১ লাখের বেশি।

 

করোনার ভয়াল থাবা না থামলেও থেমে যাচ্ছে লকডাউনের মতো কর্মসূচী। দিনে দিনে ইউরোপের দেশে দেশে লকডাউন উঠে যাচ্ছে।

 

লকডাউন শিথিল করার ঘোষণা দিয়েছে স্পেন। তবে দেশটিতে একসঙ্গে ১০ জনের বেশি জমায়েতের অনুমতি দেওয়া হচ্ছে না।

 

ফ্রান্সে ছাত্রসংখ্যা কমিয়ে কিছু প্রাথমিক স্কুল খুলছে। জামা-কাপড়, বইয়ের দোকান ও সেলুনও খুলছে।

 

বেলজিয়ামে ১১ মে অধিকাংশ দোকান খুলেছে। তবে রেস্টুরেন্ট, বার ও ক্যাফে বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

 

নেদারল্যান্ডসে প্রাথমিক স্কুল খুলেছে ১১ মে। পাঠাগার, ড্রাইভিং স্কুল ও চুল কাটার দোকানও খুলছে।

 

সুইজারল্যান্ডে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্কুল খুলছে। তবে ক্লাসে শিক্ষার্থীর সংখ্যা কমিয়ে আনা হচ্ছে। রেস্টুরেন্ট, বইয়ের দোকান ও জাদুঘরে প্রবেশ সংরক্ষিত করা হয়েছে।

 

ডেনমার্কে শপিং সেন্টার খুলেছে ১১ মে। পোল্যান্ডে হোটেল খুলে দেওয়া হচ্ছে। যদিও বিদেশ থেকে কেউ এলে দুই সপ্তাহ কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে।

 

রাশিয়ায় আক্রান্তের সংখ্যা এক দিনে ১১ হাজারের বেশি হলেও প্রেসিডেন্ট পুতিন ১২ মে থেকে লকডাউন শিথিল করার ঘোষণা দিয়েছেন।

 

তথ্যসূত্র: বিবিসি, আল-জাজিরা, সি এন এন

Leave a Reply